স্টেটমেন্ট অফ পারপাস(statement of purpose)

স্টেটমেন্ট অফ পারপাসঃ

আপনার এ্যাপ্লিকেশনের প্রাণভ্রোমরা হচ্ছে SOP. এইটা যদি শক্ত না হয়, বাকি সব কিছু পারফেক্ট হলেও এ্যাডমিশনের সম্ভাবনা একেবারে তলানিতে গিয়ে ঠেকে।
সাধারণত আধা পৃষ্ঠা থেকে দেড় পৃষ্ঠার বেশি হয়না এটা( যত ছোট হয় ততই ভালো)। যেখানে আপনি পড়তে চান সেখানে কেন পড়তে চান, কোন টপিক পড়তে চান, আপনার অতীত অভিজ্ঞতা কিভাবে এখানে পড়তে আপনাকে সহায়তা করবে এবং কেন এখন,এই জায়গাতেই আপনি পড়তে চান এগুলো সংক্ষেপে গুছিয়ে একটা সামগ্রিক গল্পের নামই হচ্ছে স্টেটমেন্ট অফ পারপাজ।

স্টেটমেন্ট অফ পারপাজ লিখবেন কিভাবেঃ

একটা কাগজ নিয়ে বসুন, হাতে কলম। এবার নীচের প্রশ্নগুলোর উত্তর চিন্তা করুনঃ

কেন আপনি এই বিশ্ববিদ্যালয়ের এই বিভাগে এই স্পেসিফিক প্রোগ্রামে ভর্তি হতে চান?

এই প্রশ্নের উত্তরে যা যা লিখলে ধরা খাবেন সেগুলো বলিঃ

“It was my childhood dream to study at MIT”

– ভাই, নোবডি কেয়ারস এবাউট ইয়োর চাইল্ডহুড ড্রিম। আপনার একাডেমিক ইন্টারেস্ট কি এবং কিভাবে সেটা এই বিভাগের সাথে ম্যাচ করে ওরা এটা জানতে চায়। সারাজীবন পড়ে এসেছেন ফিজিক্স কিন্তু এখন ভর্তি হতে চাচ্ছেন বিজনেস স্কুলের এমবিএ তে- কেন এই পরিবর্তন এটার যুক্তিযুক্ত ব্যাখ্যা আপনাকে দিতে হবে।হয়ত ফিজিক্সের পাশাপাশি আপনি একটা স্টারট আপ কোম্পানি খুলেছিলেন বা দারুণ কিছু বিজনেস প্ল্যান ছিল আপনার যেটা আপনি বাস্তবায়ন করতে চান-এবং ওই বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ব্যাপারে কাজ হয়েছে আগে, এক দুজন প্রফেসর আছেন এই কাজের জন্য বিখ্যাত। এগুলো লিখবেন ওখানে, হাবিজাবি কথাবার্তা না।

“I want to study at University of Toronto because it is the best university of Canada”

ও ভাই, এ্যাডমিশন কমিটি জানে এইটা, আপনাকে নতুন করে বলার প্রয়োজন নাই মোটেও। ওরা জানতে চায় একেবারে পিনপয়েন্ট উত্তর। “আমার রিসার্চ আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্সের অমুক টপিকে, এই টপিকের সেরা প্রফেসর ডক্টর ইশতিয়াক এখানে পড়ান।আমি চাই উনার অধীনে বা উনার কাছাকাছি থেকে আমার রিসার্চটাকে একটা বিশ্বমানের কাজে নিয়ে যেতে, যে কাজ করলে মানুষের অমুক উপকার হবে”- এটা হচ্ছে একটা ভালো রিপ্লাইয়ের উদাহরণ।

“Gandhi said, in gentle ways we shake the world. I want to be future Gandhi so I want to study peace and conflict studies in Harvard Kennedy School”

ও ভাইজান, এই স্টেটমেন্ট অফ পারপাজ গান্ধিজীর না,আপনার। এইটা আপনাকে দেয়া হয়েছে একেবারেই আপনার নিজের কথা বলার জন্য, গান্ধীজীর উক্তি লিখে জায়গা নষ্ট করার জন্য না।

জর্জটাউন বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য আমার এসওপি ছিল মাত্র আধা পৃষ্ঠা। ওদের সিকিউরিটি স্টাডিজ মাস্টার্সের এসওপিতে আমি লিখেছিলাম- আমি বাংলাদেশ পুলিশের একজন কর্মকর্তা যে কিনা রোহিঙ্গা সঙ্কটের সময় মায়ানমার বাংলাদেশ সীমান্তে কাজ করেছে। আমি মনে করি, নতুন রোহিঙ্গা আগমনের ফলে দেশের পুরোন সন্ত্রাসবাদীরা এদের সাথে যোগ দিয়ে গোটা অঞ্চল অস্থিতিশীল করে দিতে পারে এরকম একটা আশঙ্কা রয়েছে। পুলিশের ভেতর থেকে এ ব্যাপারে এখনও কোনও পেশাদার একাডেমিক রিসার্চ হয়নি এটা নিয়ে।এই যে সম্ভাব্য বিপদ এবং তার প্রতিকার-এটা নিয়ে কাজ করার মত ফিল্ড এক্সপেরিয়েন্স আমার আছে,আর জর্জটাউনের আছে বিশ্বসেরা সব এক্সপার্ট। কাজেই, আমি এলে এমন একটা কাজ হতে পারে যার মাধ্যমে শুধু বাংলাদেশ না,বিশ্বের অন্যান্য জায়গাতেও শরনার্থী সংকটে কাজে লাগে এমন সমাধান পাওয়া যাবে।

স্রেফ এটুকু লিখে জর্জটাউনে শুধু এ্যাডমিশন নয়,ফুল ফান্ডিংও পেয়েছিলাম।

ব্যাপারটা বোঝার চেষ্টা করুন।

একজন পুলিশ অফিসার যার সাত বছরের অভিজ্ঞতা আছে সার্ভিসে, যে সরাসরি রোহিঙ্গা সঙ্কটের সময় কাজ করেছে ওখানে, সে এই অভিজ্ঞতা নিয়ে একাডেমিক কাজ করতে চাইছে এমন একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে যেটার সবচেয়ে নাম করা ডিপার্টমেন্ট হচ্ছে সিকিউরিটি স্টাডিজ। সে রোহিঙ্গা সঙ্কটের পুরোটা নয়, ওখানের রোহিঙ্গা-সন্ত্রাসী সম্ভাব্য যোগাযোগ নিয়ে গবেষণা করতে চেয়েছে। এই গবেষণা করতে পারলে বাস্তবে সেটা কাজে লাগানোর জায়গাও আছে।

আমার গল্পটা কি মেইক সেন্স করে? বোঝা যাচ্ছে?

ঠিক এইভাবে চেষ্টা করুন আপনার গল্পটাকে সাজাতে। ইট মাস্ট মেইক সেন্স।

কাগজ কলম নিয়ে বসেছিলেন না?

একে একে লাইন টেনে লিখুন নীচের প্রশ্নের উত্তরঃ

কি পড়তে চাই(খুব স্পেসিফিক টপিক, যত পিন পয়েন্ট করা যায় তত ভালো)

এটা পড়ে কি হবে? কোন কাজে লাগবে এই পড়াশোনা?

কেন আমার এই বিশ্ববিদ্যালয়ে এই বিভাগেই পড়তে হবে? এখানে কি এমন আছে যা অন্য কোথাও নেই?

আমাকে নিলে এই বিশ্ববিদ্যালয় কি পাবে আমার কাছ থেকে? আমার কি এমন কোনও কাজ বা অভিজ্ঞতা আছে যা ক্লাসরূমে আলোচনায় ভিন্ন মাত্রা যোগাবে?

স্টেটমেন্ট অফ পারপাজ বাজে গালগল্প করার জায়গা না।অনেক চিন্তা করে, পাঁচ দশ বার ড্রাফট করে, অসংখ্যবার এডিট করে তৈরি হয় একটা স্টেটমেন্ট অফ পারপাজ। এ্যাডমিশন কমিটি পড়লেই বুঝতে পারে এটা ফালতু নাকি যত্ন নিয়ে লেখা।

একেক ফিল্ডে এসওপি একেক রকম হয়, কাজেই যিনি সায়েন্সে পড়ছেন তার উচিত একই বিষয়ে পড়ছে এমন কাউকে দিয়ে চেক করানো। তবে মূল কথাগুলো মোটামুটি একই।

প্রথম ড্রাফট ভালো হবেনা জানা কথা। নিজে এডিট করুন, অভিজ্ঞদের দিয়ে এডিট করান। এডিট করানো মানে আবার তাকে দিয়ে লিখিয়ে নেয়া না এইটা মাথায় রাখবেন।

এই গ্রুপে আমার গুরুজনেরা আছেন। আমি তাঁদের নাম বলছিনা, তবে যদি আমার কথার সাথে তাঁদের না মেলে, আমারটা বাদ দিয়ে তাঁদেরটা শুনবেন। আমার জ্ঞান সীমিত এবং এখনও অনেক কিছু জানিনা।যেটুকু জানি,সেটুকুই শেয়ার করছি। ফিল ফ্রি টু ইমেইল মিঃ [email protected]

Mashroof Hossain
MPA’2020 Candidate
Harvard Kennedy School
Cambridge, Massachusetts

Comments

comments