Screen-Shot-2013-05-23-at-5.40.35-PM1-292

এক সেকেন্ডে সেল্ফ ডিফেন্সঃ পর্ব-২

প্রিয় পাঠিকাবৃন্দ,

আজকে এমন একটা সেল্ফ ডিফেন্স পদ্ধতি নিয়ে বলব যেটাতে আপনারা ইতোমধ্যেই এক্সপার্ট, নতুন করে শেখার কিছু নেই। পদ্ধতিটা হচ্ছে, কামড়।
স্রষ্টা শক্ত দাঁত দিয়েছে আপনাকে, এই দাঁত দিয়েই আপনি নিজেকে রক্ষা করতে পারেন।

কামড়ের সাইকোলজিকাল কিছু দিক আছে। প্রথমত, এটার জন্য আক্রমনকারী প্রস্তুত থাকেনা। দ্বিতীয়ত, কামড় দিয়ে রক্ত বের করে দিলে একটা ভীতিপ্রদ অবস্থার উদ্রেগ ঘটে, যা মারাত্মকভাবে আক্রমনকারীকে মানসিকভাবে দুর্বল করে তোলে।

কামড় কিভাবে দিতে হয় শেখানোর কিছু নেই, তবে কোথায় দিতে হয় এ নিয়ে কিছু জিনিস মাথায় রাখার আছে।

 

12718213_1711614205782210_333121067779082343_nএক) ভ্যাম্পায়ারের মত ঘাড়ে, কানে এমনকি নাকে কামড় দিতে পারেন সর্বশক্তিতে। কামড় দেয়াটা কঠিন না, কঠিন হচ্ছে নিজের ভেতরে পাশবিক আক্রোশ জাগিয়ে তোলা। মনে মনে অনুশীলন করুন এটা, কিভাবে কামড় দিয়ে বদমায়েশটার মাংস তুলে নিচ্ছেন এটা সাহস করে চিন্তা করুন এবং মানসিক প্রস্তুতি নিন।

 

12924434_1711614202448877_8872774339715905368_nদুই) চেষ্টা করবেন চামড়া এবং মাংসে কামড় বসাতে, আস্ত হাড়ের উপর বসিয়ে ফায়দা হয়না খুব একটা। গোটা মুখ ভর্তি আক্রমনকারীর হাত না নিয়ে চামড়া আর মাংস সমৃদ্ধ অংশে কামড় বসিয়ে ছিঁড়ে নিন বাঘিনীর মত। কামড়ে হাড় আপনি কাটতে পারবেন না, কিন্তু ঠিকই চামড়া ছিঁড়ে দিতে পারবেন।

আপনার লক্ষ্য হবে কামড়ে ধরে থাকা না, বরং কামড়ে চামড়া মাংস আলাদা করা।

 

12931015_1711614212448876_5124235537221952261_nতিন) আঙুলে কামড় বসাবেন সুযোগ পাওয়ামাত্র।

 

 

 

 

কামড় আলটিমেট আক্রমণ নয়, আক্রমণের শুরু। কামড় দিয়ে নিজেকে ছাড়িয়ে নিরাপদ স্থানে দৌড় দিন, আর নাহলে আহত বদমায়েশের উপর কিল, ঘুষি, লাত্থি ইচ্ছেমত প্রয়োগ করুন।

যদি একাধিক আসে, সবচাইতে কাছেরটাকে দিয়ে শুরু করুন।

আই রিপিট, কাপুরুষের দল আপনার কাছে প্রতিরোধ আশা করেনা। একটাকে কামড়ে রক্ত বের করে দিন, ভয়ে বাকিগুলোর শিশ্ন পেটের ভেতর ঢুকে যাবে।

আরেকটা প্রশ্ন অনেকেই করেন, ভাইয়া, আমি ফাইট করলে ওরা যদি আরো বেশি এগ্রেসিভ হয়?

দেখুন, এদের মূল উদ্দেশ্য আপনাকে যৌন হয়রানি করা, যতটা নিরাপদে পারে। আপনি ফাইট করে ওদের কাজটা কঠিন করে দিচ্ছেন। এরা এগ্রেসিভ এমনিতেও হবে, ওমনিতেও হবে। বরং এ সংক্রান্ত রিসার্চ বলে , ফাইট ব্যাক করলে আপনার বেঁচে যাবার সম্ভাবনা অনেক বেশি।

আমার প্রশ্ন, তাহলে কি এদের ভয়ে বিনা প্রতিবাদে যৌন হয়রানি মেনে নেবেন?

এই যদি হয়, ধিক আপনাকে, shame on you.

গত বিশ হাজার বছর ধরে তো চুপচাপ মেনে ভালো মেয়ে হয়ে আছেন, এতে কি আপনাদের উপর নরপশুদের লোলুপ দৃষ্টি শুধরে গিয়েছে??

প্রশ্নটা আয়নায় দাঁড়িয়ে একবার করুন।

এনাফ ইজ এনাফ। টাইম টু ফাইট ব্যাক।

One pervert at a time,একটা একটা করে বদমায়েশ ধরুন আর সাইজ করুন।

জাগো গো বাঘিনী!

 

প্রথম প্রকাশিতঃ ৩রা এপ্রিল, ২০১৬

Comments

comments